Hasir Alo Prakalpa | হাসির আলো প্রকল্প- এ ফ্রি বিদ্যুত্‍‌ ২ লক্ষ ঘরে

 অমোঘ-ক্ষণে ‘হাসির আলো’ প্রকল্প এনে আর্থিকভাবে পিছিয়ে থাকা পরিবারগুলি নিখরচায় বিদ্যুৎ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। রাজ্য বাজেটের ঘোষণা অনুযায়ী, তিন মাসে যাঁদের বিদ্যুৎ খরচ ৭৫ ইউনিট পর্যন্ত, তাঁদের পরিবারে হাসির আলো ফুটবে! তার মধ্যে অন্তত ২ লক্ষ গ্রাহক ‘লাইফ লাইন কনজিউমার’ হিসেবে ওই প্রকল্পের আওতায় আসবেন। ওই গ্রাহকদের বর্তমানে ইউনিট পিছু ১৯ পয়সা ভর্তুকি দেয় রাজ্য সরকার। এ বারে তাঁরা বিনা পয়সায় বিদ্যুৎ পাবেন। 

কিন্তু, মাত্র ৭৫ ইউনিট বিদ্যুতে তিন মাস চলা কী সম্ভব? বিদ্যুৎ দফতরের এক কর্তা বলছেন, ‘‘অবশ্যই সম্ভব। মাসে ২৫ ইউনিট বিদ্যুৎ খরচ হলে দৈনিক ১০ ঘণ্টা করে একটি ৬০ ওয়াটের পাখা এবং দৈনিক ১০ ঘণ্টা করে ২০ ওয়াটের আলো জ্বালানো যেতে পারে।’’


‘দরিদ্রসীমার নীচে থাকা যাঁদের ত্রৈমাসিক বিদ্যুতের খরচ ৭৫ ইউনিটের মধ্যে, তাঁদের বিদ্যুত্‍‌ চার্জ সম্পূর্ণ মকুব করার প্রস্তাব করা হচ্ছে। ১৩ লক্ষ মানুষ এর ফলে উপকার পাবেন। এর নাম হাসির আলো প্রকল্প।’

বাম আমলে দুঃস্থদের জন্য ‘লোকদীপ’ প্রকল্প চালু হয়েছিল। সে সময় বিপিএল তালিকাভুক্ত মানুষকে পাঁচ টাকায় বিদ্যুৎ দেওয়া হত। পরবর্তী সময়ে সেই প্রকল্প উঠে গিয়ে ভর্তুকিতে বিদ্যুৎ দেওয়া শুরু হয়। ২০১৪ সালে বিজেপি ‘উজালা যোজনা’ নামে একটি প্রকল্প এনে কম দামে এলইডি আলো (LED) দিয়েছিল। কিন্তু সে সবই এখন অতীত। হাসির আলো নয়া সংযোজন।

বিদ্যুৎ দফতরের এক কর্তা বলছেন, এখন আগের থেকে বিদ্যুতের ব্যবহারে বেড়েছে। এই মুহূর্তে যে সব পরিবারে ৭৫ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুৎ খরচ হয় তাঁদের ভর্তুকিতে বিদ্যুৎ দেওয়া হয়। রাজ্য সরকারের ইউনিট পিছু ১৯ পয়সা ভর্তুকির জেরে তাঁদের ইউনিট পিছু বিদ্যুতের দাম দিতে হয় ৩ টাকা ৩৭ পয়সা। রাজ্য বাজেটের ঘোষণা অনুযায়ী, এই ধরনের গ্রাহকেরা নিখরচায় বিদ্যুৎ পাবেন।

Name of the scheme:                                    Hasir Alo Scheme
Launched in:                                                    West Bengal
Launched by:                                                   Mamata Banerjee
Announced by:                                                Amit Mitra
Date of launch:                                                February 2020
Date of implementation:                              Soon
Target beneficiaries:                                      Poor households
Supervised by:                                                 West Bengal Government

Leave a Comment